ফোন রি-স্টার্ট করলে কী হয়?

ফোন রি-স্টার্ট করলে কী হয়?

ফোন রি-স্টার্ট করলে কী হয়?

ফোন রি-স্টার্ট করলে কী হয়? আপনার মোবাইল ফোনটি কি Lag করতেছে বা স্বাভাবিকের তুলনায় একটু ধীর গতিতে চলতেছে?

আপনি নিশ্চয়ই ভীষণ চিন্তিত আপনার প্রয়োজনীয় মোবাইল ফোনটি নিয়ে? আপনি হয়তো তার সমাধান খুঁজছেন, এবং একে ওকে প্রশ্ন করছেন। তাই আমরা আমাদের সাইটে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করলাম। প্রশ্নটির উত্তর হিসাবে বেশিরভাগ মানুষই আপনাকে প্রথমে আপনার মোবাইল ফোনটি রি-স্টার্ট করার পরামর্শন্ত দেবে। এবং সত্যিই মোবাইল ফোন রি-স্টার্ট করার পর বা যেকোনো কম্পিউটিং ডিভাইস বেশ ভালো ভাবে পারফর্ম করতে থাকে। আপনি যখন আপনার মোবাইল ফোন রি-স্টার্ট করেন, এই সময় ইন্টারনাল ভাবে বেশ কিছু প্রসেস ঘটে যা আপনার মোবাইলের পারফরম্যান্স এনহান্সে(Enhance) সাহায্য করে। যেইগুলি হল এইরূপ:

ফোন রি-স্টার্ট করলে কী হয়?

  • RAM Memory Cleaning:

আপনি যেসব অ্যাপ্লিকেশন গুলি প্রতিনিয়ত বা খুব বেশি ব্যাবহার করেন, সেইগুলি ব্যবহারের পর বন্ধ করে দিলেও পুরোপুরিভাবে অ্যাপ্লিকেশনগুলর ডাটা(Data) RAM থেকে রিমুভ হয়না। বর্তমান সময়ের মোবাইল ফোন কোম্পানিগুলো প্রায় সমস্ত অপারেটিং সিস্টেমে নিজেদের বুদ্ধিমত্তাকে কাজে লাগিয়েছে, আপনার দৈনন্দিন ব্যাবহার করা অ্যাপ্লিকেশন এর ডাটা RAM এ স্টোর করে রাখার জন্য। এর ফলস্বরূপ আপনি যখনই ওই নির্দিষ্ট অ্যাপ্লিকেশন টি চালু করেন তখনি সেটি তুলনামূলক একটু কম সময় এর মধ্যে আপনার সামনে উপস্থাপিত হয়। এইভাবে RAM এ আপনার ফোনের ডাটা স্টোর হতে থাকে। ফলে আপনার ফোনের মেমরি স্পেস কমে যায়। এবং নতুন কোনো অ্যাপ্লিকেশন ওপেন করলে তখন মনে হয় যেনো আপনার মোবাইলটি স্লো(Slow) হয়ে গেছে।

এই ভর্তি হওয়া RAM Space আপনি ২টি উপায়ে কমাতে পারেন।

১। আপনাকে আপনার মোবাইল ফোনটি রি-স্টার্ট করতে হবে।

২। মানুয়ালি(Manually) আপনাকে প্রতিটি অ্যাপ্লিকেশন কে স্টপ করতে হবে।

আপনার ফোনটি রি-স্টার্ট করার পর যেহেতু RAM এর বেশ কিছু ফাইল মুছে যায়, তাই যেকোনো অ্যাপ্লিকেশন খুবই দ্রুত চালু হয় এবং মনে হয় যেনো মোবাইলটি একটু দ্রুত হয়ে গিয়েছে।

  • System Check:

আপনার মোবাইলটি রি-স্টার্ট হওয়ার পর যখন ফোনের সিস্টেম নতুন করে বুট(Boot) হয় তখন অপারেটিং সিস্টেমে বিভিন্ন এরর(Error) চেক প্রসেস চালায় এবং ওই সময় নির্দিষ্ট এরর গুলিকে ফিক্স করার চেষ্টা করে।

ফোন রি-স্টার্ট করলে কী হয়?

কত সময় অন্তর আপনার ফোন রি-স্টার্ট করলে ভাল হয়?:

কত দিন পর পর আপনি আপনার মোবাইল ফোনটি রি-স্টার্ট করবেন তার কোনো নির্দিষ্ট নীতি নেই। এটি সম্পূর্ণভাবে আপনার মোবাইল ফোন এবং আপনার উপর নির্ভর করে। আপনার মোবাইল টি যদি ল্যাগ করছে বা স্লো চলছে অথবা সাধারণের থেকে বেশি গরম হচ্ছে(Heating issue), তাহলে আপনি চাইলে এর সিস্টেম রিবুট করতে পারেন।

পরামর্প্তিশঃ প্রতিদিন সম্ভব না হলেও অন্তত সপ্তাহে দুই একবার করে আপনার মোবাইলটি রি-স্টার্ট করতে পারেন, এতে আপনার সিস্টেম ভালো ভাবে কাজ করবে এবং বিভিন্ন সিস্টেম ইরর সলভ করতে সক্ষম হবে।

ফোন রি-স্টার্ট করলে কী হয়?

About Bijoy job

Leave a Reply

Your email address will not be published.