সোনালী ব্যাংক ২০ লক্ষ টাকা ঋণ পাওয়ার উপায় ২০২২

সোনালী ব্যাংকের ২০ লক্ষ টাকা ঋণ

সোনালী ব্যাংক ২০ লক্ষ টাকা ঋণ পাওয়ার উপায় ২০২২

সোনালী ব্যাংক ২০ লক্ষ টাকা ঋণ পাওয়ার উপায় ২০২২, হ্যাঁ আপনা ব্যাংক ঋণ প্রয়োজন হতে পারে আপনি যদি একজন চাকরিজীবী বা ব্যবসায়ী হন। বর্তমান প্রজন্মের টাকার প্রয়োজন নেই এমন মানুষ খুঁজে পাওয়াটা ছবি দুর্লভ। আমরা প্রতিনিয়ত ছুটে বেড়াচ্ছে টাকার জন্য কারণ আমাদের প্রত্যেকের কারো না কারো গৃহনির্মাণ ব্যক্তিগত প্রয়োজন বা চিকিৎসা জনিত কারণে অথবা নতুন ব্যবসা চালু করার জন্য প্রচুর পরিমাণ টাকার প্রয়োজন হয়। সোনালী ব্যাংক থেকে কিছু পেশাজীবী ব্যক্তির জন্য সহজ শর্তে ঋণ প্রদান করা হয়। আজ আমরা আমাদের সাইটে বিজয়জব সোনালী ব্যাংকের 20 লক্ষ টাকা লোন সম্পর্কে কিছু বিষয়ে আলোচনা করব যদি আপনাকে ঋণ পেতে সহযোগিতা করবে।

সোনালী-ব্যাংকের ২০ লক্ষ টাকা ঋণ কারা পাবেন?

প্রথমে আমাদের জেনে নেওয়া ভালো 20 লক্ষ টাকা পর্যন্ত ব্যাংকঋণ সবার জন্য নয়। সরকারি চাকরিজীবী থেকে শুরু করে বিভিন্ন বেসরকারী প্রতিষ্ঠান, ব্যাংক-কোম্পানী, বীমা কোম্পানি, ব্যক্তিগত মালিকানাধীন পোশাক শিল্প প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা কর্মচারীবৃন্দ এবং সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক বৃন্দ এই লোন প্রাপ্তির যোগ্য বলে বিবেচিত।

কে, কত মেয়াদে, কত টাকা ঋণ পাবেন?

আপনি কত টাকা লোন নিতে চান সেটা বড় ব্যাপার নয় সব থেকে বড় ব্যাপার হল আপনি কত টাকা লোন প্রাপ্তির যোগ্য। এ বিষয়টি আপনাকে লোন প্রদানের পূর্বে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ যাচাই করবে। এক্ষেত্রে আপনি কত টাকা লোন পাবেন সেটের সার্বিক দিক ব্যাংক কর্তৃপক্ষ বিবেচনা করলেও, আপনি কত কিস্তির মাধ্যমে পরিশোধ করতে চান সেটি আপনি ঠিক করতে পারবেন। আপনি ১ বছর থেকে সর্বোচ্চ ৮ বছর পর্যন্ত মেয়াদকালীন ১ লক্ষ টাকা হতে ২০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ব্যাংক ঋণ নিতে পারবেন।

আপনি নিম্নে বর্ণিত চিত্র দেখে নিজেই নির্ধারণ করতে পারবেন কত টাকা নিলে কত টাকা কিস্তি শোধ করতে হবে। এবং আপনি সর্বোচ্চ কত টাকা লোন নিতে পারবেন তা আপনি নিজেই বুঝতে পারবেন। আপনার প্রতি মাসে কত টাকা বেতন ভাতাদি ব্যাংকে ঢুকে সেই পরিমান কিস্তির কলামে যা ঋণ হিসেবে আসে তাই আপনি সর্বোচ্চ প্রাপ্য হতে পারেন।

সোনালী ব্যাংকের ২০ লক্ষ টাকা ঋণ

ধরুন যদি আপনার মাসে একাউন্জদি২৯,৩০০ টাকা জমা হয় তাহল, আপনি .২০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ঋণ পেতে পারেন। তবে ব্যাংক আপনাকে আরো বেশি ঋণ প্রদানের অফার করতেই পারে যদি ব্যাংক কর্তৃপক্ষ রিস্ক ক্যালকুলেশন করে ভালো ফলাফল পায়। যদি আপনার বেতন ভাতাদি সর্বমোট ২৯,৩০০ টাকা হতে ৩০,০০০ টাকা হয় তাহলে আপনি প্রয়োজন অনুসারে এবং ঋণের নিরাপত্তা বিবেচনায় সর্বোচ্চ ২০ লক্ষ টাকা ঋণ পেতে পারেন।

সোনালী ব্যাংকের ঋণ নিতে কি কি ডকুমেন্ট লাগবে?

ঋণ পেতে পেশা ভেদে কোন ডকুমেন্ট জমা দিতে হয়। আপনি যদি একজন সরকারি কর্মচারী হন তাহলে আপনার কি কি ডকুমেন্ট লাগতে পারে সেটিই আজকে আমরা আলোচনা করব।

১। পাসপোর্ট সাইজের ২ কপি ছবি।

২। জাতীয় পরিচয়পত্রের ০২ কপি ছবি এবং কর্মস্থলের আইডি কার্ডের ফটোকপি -০২ কপি।

৩। যিনি আপনার গ্যারান্টর হবেন আপনার মতো  উনারও(সরকারী চাকরীজীবি) ২ কপি ছবি এবং ২ কপি আইডি কার্ডের ফটোকপি।

৫। প্রভিডেন্ট ফান্ড স্লীপ এর ফটোকপি-২ কপি।

৬। এমপিও ভুক্ত শিক্ষক হলে এমপিওর আদেশের কপি-২ কপি।

সোনালী ব্যাংকের ২০ লক্ষ টাকা ঋণ পেতে কত দিন লাগে?

মোট কথা টাকা প্রত্যেকেরই প্রয়োজন হয়। এমনও ব্যক্তি আছে যারা এই মুহূর্তে 20 লক্ষ টাকা প্রয়োজন সুতরাং তিনি সোনালী ব্যাংকের শাখায় দ্রুত যোগাযোগ করতে পারেন। আপনার বেতনের হিসাব যদি অন্য কোন ব্যাংকে থেকে থাকে তবে ওই হিসাবটি সোনালী ব্যাংকের নিকটস্থ শাখায় নিয়ে আসুন এবং ২০ লক্ষ টাকার ব্যক্তিগত ঋণ গ্রহণ করতে পারেন। এটি ব্যাংক ঋণ প্রসেস অনুসারে ৩০ থেকে ৯০ দিন পর্যন্ত সময় লাগতে পারে।

 

About Bijoy job

Leave a Reply

Your email address will not be published.